ঢাকা,  সোমবার  ২২ জুলাই ২০২৪

নিউজ জার্নাল ২৪ :: News Journal 24

“হুন্ডিতে টাকা পাঠানো মানুষগুলোই দেশকে শ্রীলংকা বানাতে চায়”- আ স ম ফিরোজ এম.পি

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২১:৩০, ২৪ জুন ২০২৩

“হুন্ডিতে টাকা পাঠানো মানুষগুলোই দেশকে শ্রীলংকা বানাতে চায়”- আ স ম ফিরোজ এম.পি

ছবি সংগৃহীত

শনিবার পটুয়াখালী শিল্পকলা একাডেমিতে দর্শকদের উপস্থিতিতে চ্যানেল আই’তে প্রতিদিন প্রচারিত টক শো ‘তৃতীয় মাত্রা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে পটুয়াখালী অঞ্চলের ব্যবসায়িক অবস্থা, আঞ্চলিক অর্থনীতি, বেসরকারি খাত,  ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প, নারী অধিকার, তরুণদের উন্নয়ন ও রাজনীতিসহ নানা বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে ছিলেন সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক চীফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এম.পি, পটুয়াখালী জেলা বিএনপির সদস্য সচিব স্নেহাংশু সরকার কুট্টি, সাবেক সংসদ সদস্য সরদার আবদুর রশিদ এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, পটুয়াখালী জেলার সভাপতি মুফতি হাবিবুর রহমান। এছাড়াও, পটুয়াখালী জেলার এসএমই উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজ ও শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন স্তরের পেশাজীবীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এ অঞ্চলের উন্নয়নের বিষয়ে আ স ম ফিরোজ এম.পি বলেন, “আগামী দুই বছরের মধ্যে এ অঞ্চলের পরিস্থিতি আরও পরিবর্তন হবে”। শুধু পটুয়াখালী নয়, সারা বাংলাদেশেই উন্নয়ন ঘটছে উল্লেখ করে তিনি জানান, “বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে ছেলেমেয়েরা বাইরে যাচ্ছে, আপনারা নিশ্চিতে থাকেন আগামী পাঁচ বছর পরে বিদেশ থেকে ছেলেমেয়েরা বাংলাদেশে আসবে”। এছাড়াও তিনি অর্থনীতির বিষয়ে উল্লেখ করে জানান, “বাংলাদেশকে যারা শ্রীলংকা করতে চায়, তারাই বিদেশ থেকে দেশে ব্যাংক চ্যানেলের মাধ্যমে টাকা না পাঠিয়ে হুন্ডির মাধ্যমে পাঠায়”। এর পাশাপাশি তিনি ভূমি দখলের বিষয়ে জানান, “এ অঞ্চলে ভূমি দখলের ঘটনা আছে সেটি অস্বীকার করা যাবেনা। তবে, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী আছে এবং আইন আদালত আছে, কেউ চাইলে সেখান থেকে সরাসরি সহায়তা নিতে পারেন”।

স্নেহাংশু সরকার কুট্টি বলেন, “কুয়াকাটা এ অঞ্চলের পর্যটনের মূল কেন্দ্রবিন্দু হলেও সেখানে বিনোদনের জন্য কোনো ব্যবস্থা নেই। ফলে, এটি পর্যটকদের আকৃষ্ট করেনা”। এ অঞ্চলের রাজনৈতিক পরিস্থিতি বর্ননা করতে গিয়ে তিনি বলেন “পটুয়াখালীতে আগে বিভিন্ন দলের মানুষের মধ্যে সৌহার্দপূর্ণ অবস্থান ছিল, আমরা আশা করবো সেই সহ-অবস্থান ও সুন্দর ব্যবস্থা ফিরে আসবে”।

সরদার আবদুর রশিদ পটুয়াখালীর শিল্প কারখানার বিষয়ে জানান, “এ অঞ্চলে এতদিন রাস্তাঘাটের অভাব ছিল, এখন হয়েছে। বিসিকের মত শিল্প আঞ্চলও গড়ে উঠেছে। এখন শুধু এখানে গ্যাসের অভাব। এটি নিশ্চিতে হলেই এ জেলার উন্নয়ন আরও বেশি ত্বরান্বিত হবে এবং শিল্প কারখানা গড়ে উঠবে”। এছাড়াও তিনি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সরকারের কাছে কুয়াকাটায় মহিলা কারিগরি কলেজ নির্মানের জন্য দাবী জানিয়েছেন।

মুফতি হাবিবুর রহমান ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ব্যবসার জন্য ঋণ পাওয়ার বিষয়ে জানান, “বর্তমান বাংলাদেশে ব্যাংক ব্যবস্থা চলে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে। বড় ব্যবসায়ীরা চাইলেই ঋণ পেলেও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদেরকে অনেক সমস্যা পোহাতে হয়”। এছাড়াও বিভিন্ন মৌসুমে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন জেলেদের জন্য নির্দিষ্ট রেশনের সরকারি বরাদ্দ থাকলেও এটি সুষ্ঠভাবে বণ্টন করা হয় না বলে অভিযোগ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে দর্শকরা সরাসরি আলোচকদের আঞ্চলিক বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করেন এবং আলোচকরা তার উত্তর দেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন তৃতীয় মাত্রা’র পরিচালক ও উপস্থাপক জিল্লুর রহমান।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন